August 5, 2020, 8:06 am

আবারও বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

আবারও বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক

নতুন পেঁয়াজের প্রভাবে গত সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম কমে অর্ধেকে নামলেও আবার বেড়েছে। রাজধানীর বাজারগুলোতে সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ২০ টাকা পর্যন্ত।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ানবাজার, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও অঞ্চলের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, আমদানি করা ছোট পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৩০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১০০-১২০ টাকা। আমদানি করা পেঁয়াজের পাশাপাশি বাজারে আসা নতুন দেশি পেঁয়াজের দামও বেড়েছে। দেশি নতুন পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৭০-৮০ টাকা।

পেঁয়াজের দামের বিষয়ে রামপুরার ব্যবসায়ী আলম বলেন, সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম আবার বেড়েছে। গত সপ্তাহে নতুন পেঁয়াজের কেজি ৭০ টাকা বিক্রি করেছি। আজ তা ১০০ টাকা কেজি বিক্রি করতে হচ্ছে। পাইকারির যা অবস্থা তাতে মনে হচ্ছে পেঁয়াজের দাম আরও বাড়তে পারে।

কারওয়ানবাজারের ব্যবসায়ী নোয়াব আলী বলেন, বাজারে নতুন পেঁয়াজ কম আসছে, এ কারণে দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে সামনে প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে পেঁয়াজের দাম শিগগিরই কমে যাবে।

এদিকে শীতের শাক-সবজি ফুলকপি, পাতাকপি, মুলা, শাল গম, শিম, পালন শাক, মুলা শাক, সরিষা শাকের সরবরাহ বাড়লেও রাজধানীর বাজারগুলোতে সবজির দাম সেভাবে কমেনি। সপ্তাহের ব্যবধানে প্রায় সব ধরনের সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

ব্যবসায়ীরা আগের মতোই বলছেন, শীতের সবজির সরবরাহ বাড়ায় কিছু সবজির দাম কমেছে। এর মধ্যে সব থেকে বেশি দাম কমেছে শিম, পাকা টমেটো ও গাজরের। কিছুদিন আগেও একশ টাকার ওপরে কেজি বিক্রি হওয়া এ সবজিগুলো এখন অনেকটাই সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, খুচরা পর্যায়ে শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহেও ছিল ৩০-৪০ টাকা। আর তিন সপ্তাহ আগে ছিল ১০০ টাকা কেজি। আর বাজারে নতুন আসা লম্বা শিমের কেজি গত সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা।

বাজার ও মানভেদে দেশি পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকা। আর আমদানি করা পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকার মধ্যে। সপ্তাহের ব্যবধানে টমেটো ও গাজরের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

টমেটো, শিম, গাজরের দামের মতো অধিকাংশ সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজার ও মানভেদে নতুন গোল আলুর কেজি গত সপ্তাহের মতো ৩০-৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। বরবটির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকা। ফুলকপি ও বাঁধাকপি আগের সপ্তাহের মতো ৩০-৪০ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে। পেঁপেও ৩০-৩৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৪০-৬০ টাকা কেজি। মুলা পাওয়া যাচ্ছে ২০-৩০ টাকার মধ্যে। শালগম বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা কেজি। করলা আগের মতো ৫০-৭০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

খিলগাঁওয়ের ব্যবসায়ী হাসান আলী বলেন, সপ্তাহের ব্যবধানে সবজির দাম নতুন করে কমেনি। তবে সবজির দাম এখন বেশ কম। সামনে দাম আরও কমবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com