September 23, 2020, 6:26 am

News Headline :
মনপুরাগামী ৩ শতাধিক যাত্রীকে মাঝপথে নামিয়ে দিলেন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ॥ ট্রলারযোগে উত্তাল মেঘনা পাড়ি তজুমদ্দিনে বিয়ে বাড়িতে খাবারে নেশা মিশিয়ে স্বর্ণালংকার চুরি ॥ হাসপাতালে ভর্তি-৬ মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে টঙ্গীতে পদ-পদবী বঞ্চিত নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ দুর্গাপূজায় ৩ দিনের ছুটির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি স্বাস্থ্য খাতের ২০ জনের সম্পদের হিসাব চেয়েছে দুদক গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনা পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ মুজিববর্ষ উপলক্ষে ফের বিশেষ অধিবেশনের প্রস্তুতি গায়েবি মামলায় সাংবাদিক কারাগারে : তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাবি গুলশানে স্পা সেন্টারে অভিযান, নারীসহ ২৮ জন গ্রেফতার কক্সবাজারের পথে সোনারগাঁয়ে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির গাড়িতে আগুন
আমার স্মৃতিমাখা হৃদকমল ভাসায় চোখের কোন – ১ ———————

আমার স্মৃতিমাখা হৃদকমল ভাসায় চোখের কোন – ১ ———————

Spread the love

[ আমার অন্তরের অন্দরে জমা  স্মৃতি-কথা গুলো বেঁধেসেধে হৃদয়ে হৃদয়ে হৃদয়ঙ্গম হোক। এই প্রত‍্যাশা রেখে  বাংলাদেশ ভ্রমণ-কথা লিপিবদ্ধ করলাম। ]
     

 ১৩-০৭-২০১৯ আমি প্রথম বাংলাদেশ যাই যশোর সাহিত্য উৎসব এ। সে বারেও পদ্মার ঢেউয়ের মত আছড়ে পড়া আন্তরিকতায় মনে হয়েছিল– এ বঙ্গের মানুষ যা যা করছেন সব মন থেকে তো!  বর্তমান সময়ে একজন  ভিনদেশীর জন‍্য এতটা সময় দেওয়া সম্ভব! আমরা কি সময় দিই? কেন এত সময় নষ্ট করেন ওনারা?এটা কোন উপকারে লাগবে শুনি? আমার বন্ধু মাধুরী, কল্পনা, সোমা, সুজিত, রণজিৎ, তীর্থ, অর্কের বাবারা কেন যে এদেশ ছেড়েছিলেন! খুব ভুল করেছেন ওনারা। এসব ভাবনা মাথায় সব সময় ঘুর ঘুর করে। মনে মনে ভাবি– কী আর হবে, এক থেকে দুই হয়েছে- দেশ। দুই জুড়ে কি এক হবে? যা হোক এবার আসল কথায় আসি–         যখন ট্রেনে দর্শনায় পৌঁছলাম ঘরিতে তখন সকাল ছটা।

বর্ডারে ধাপে ধাপে চেকিং, নোট- বিনিময় এসব হতে হতে- বেশ কয়েকবার লাইন এ দাঁড়াতে হয়েছে। মুখে মাখানো বোকা মৃদু হাসিটা  বোকামো ছেড়ে চালাক হয়ে গুটিয়ে আসছিল। এতো সকালেও লাইন! মুখে বিরক্তির ছাপ, দাঁড়াতে যেন কোনো যাত্রীই চাইছেন না, তবুও যেতে হবে ……  অগত্যা! এমতাবস্থায় দেখতে পেলাম   হঠাৎ করোনা’র(করোনা ভাইরাস) চেকিং।আহা কী আনন্দ! না, করোনা’র জন্য না।

চেকআপ এর জন্যও না। চেয়ারের জন্য। যেখানে যাত্রীদের বসিয়ে করোনা’র চেকআপ করছেন ডাক্তার বাবু। মনে হল আধঘণ্টা ধরে চেকআপ হোক বসতে পারব। হল না।

বড়জোড় পাঁচ মিনিট হল, তাতেও কী দিলখুশ! ডাক্তার বাবু বললেন- বসেন বসেন, আ-সলাম ওয়ালেকম, কেমন আছেন( যেন, কত দিনের চেনা), জ্বর শর্দি কাশি নেই তো? আ করেন, মুখের ভিতরে টর্চের আলো, আর মনের ভিতরে টাচের আলো স্পর্শ করল। আপা, এইবার কি প্রথম আইছেন?না, দ্বিতীয়।যাইবেন কোই?ঢাকা।

(ক্রমশ…..)


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com