September 25, 2020, 2:02 am

News Headline :
স্বপ্নশয্যা গাজীপুরে চতুর্থ দিনেও আওয়ামী লীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ মিছিল মনপুরাগামী ৩ শতাধিক যাত্রীকে মাঝপথে নামিয়ে দিলেন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ॥ ট্রলারযোগে উত্তাল মেঘনা পাড়ি তজুমদ্দিনে বিয়ে বাড়িতে খাবারে নেশা মিশিয়ে স্বর্ণালংকার চুরি ॥ হাসপাতালে ভর্তি-৬ মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে টঙ্গীতে পদ-পদবী বঞ্চিত নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ দুর্গাপূজায় ৩ দিনের ছুটির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি স্বাস্থ্য খাতের ২০ জনের সম্পদের হিসাব চেয়েছে দুদক গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনা পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ মুজিববর্ষ উপলক্ষে ফের বিশেষ অধিবেশনের প্রস্তুতি গায়েবি মামলায় সাংবাদিক কারাগারে : তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাবি
কষ্টের কবিতা

কষ্টের কবিতা

Spread the love

…………….মৃণাল চৌধুরী সৈকত

আজ এই পৃথিবীটা নীরব
সব যেন রয়েছে চুপচাপ,
কেবল বাতাস পাতায় পাতায়
বিলাপ করে যাচ্ছে অবিরত,
আর একজন কিশোর কবি
তার হৃদয়ের সমস্ত বেদনার বানী
একের পর এক লিখে যাচ্ছে
কোন এক কষ্টের কবিতায়।
গভীর রাতে পড়ার টেবিলে বসে
কবি, একের পর এক লিখে যাচ্ছে,
আমার এ হৃদয় আজ-হৃদয়ের কাছে আর্তচিৎকার করে বলছে,
সবাই ঘুমিয়ে থাক-
শুধু জেগে থাকবো আমি।
আমি জেগে থেকে দেখে যাবো
পুর্ণিমার হাস্যেউজ্জল ভোর,
উপভোগ করে যাবো-
ফ্যানের ক্লান্ত হাওয়া টেলে ভেসে আসা
হাসনা হেনার সুরভিত গন্ধ ।
কর্ণপাতে শোনে নেবো,
ঝিঝি পোকার মধুর সুরধ্বন্নি।
দু-আঁখি ভরে দেখে নেবো-
জ্যোৎস্নার আকাশ
ভোরের রোদ আর
শিশির ভেঁজা দূর্বাঘাসে
আমার সেই হারানো প্রিয়ার প্রতিচ্ছবি ।
কোন এক সময়-যার কাছে ছিলো
আমার ভালোবাসার নীল-নকশা ।
যাকে আমি সাঁজিয়ে ছিলাম-
আমার এ স্থৃতির মনিকোঠায়,
গভীর হৃদয়ের এ্যালবামে।
স্বভাবতই সেদিনের সেই মুহুর্ত গুলোকে
মনে হয় স্থৃতির স্বেতপাথর-
কোন এক আরব্য গাথার,
মনে হয় স্থৃতির এ্যালবাম গুলো-
আজ বড়ই দূস্কর
আমার এই হৃদয় কোলাহলে।
হয়ত তাই, হৃদয় আজ হৃদয়ের কাছে
আর্তচিৎকার করে বলে,
আমি আর ঘুমাবো না-
ওরা ঘুমিয়ে থাক,
আমি শুধু, জেগে থেকে দেখে যাবো
আকাশের তারা গুলো হারায়নি আজো
ভোরের সূর্য্যটা নীরব থাকেনি কখনো।
যখনই জানালার পর্দা খোলে দেখি-
আমার হারানো প্রিয়ার প্রতিচ্ছবি,
নিঃসঙ্গ বুকে পাথরচাপা দীর্ঘশ্বাস আর হাহাকার ভরা হৃদয় নিয়ে ভাবি
জীবন মানে কষ্ট-
কষ্ট থেকে জন্ম নেয় ভালোবাসা।
আমি আজ একা-বড় একা
কেউ নেই আমার পাশে,
আমি যেন আজ-এক অজানা দ্বীপে
অজানা রহস্যের পথ ধরে করছি যাত্রা।
যেখানে থাকবে না স্থৃতির কোন এ্যালবাম
থাকবে না অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যত
থাকবে না কারো বসবাস-
থাকবে না নীল আকাশে মেঘের ঘনঘটা
থাকবে না বৃষ্টির রিমঝিম শব্দ
থাকবে না পাখির কোলাহল
থাকবে না বাতাস কিংবা বৈশাখী ঝড়,
থাকবে না সবুজ তরুলতা
থাকবে না প্রিয়ার প্রতিচ্ছবি
থাকবে না মা-বাবা,আত্বীয়-স্বজন।
থাকবে না চায়ের দোকানে
খেলার মাঠে
নাটকের মঞ্চে
অফিসের চেয়ারে-
প্রিয় বন্ধুদের কোলাহল।
সেই অচেনা-অজানা দ্বীপে থাকবে
আধারে ঢাকা ছোট্র একটি কুড়ের ঘর,
থাকবো সঙ্গহীন-নিঃসঙ্গ শুধু আমি।
যেখানে সূর্য্যি মামা
নিজেকে আড়াল করে রাখে আজীবন।
আমার এ শতাব্দীর কষ্টের কবিতা
দুঃখ ভারাক্লান্ত হৃদয়ের কাছে
আর্তচিৎকার করে বলে,
তুমি ঘুমিয়ে থাকো,
আর আমি জেগে থেকে সন্ধান করবো-নতুন এক অজানা পথের,
নতুন এক ভালোবাসাহীন জীবনের।
যে পথে তোমাহীনা ভালোবাসা যায়
এ বাংলার মাঠি ও মানুষকে,
যে ভালোবাসার বিক্ষুদ্ধ তরাঙ্গাঘাতে
হারিয়ে না যায়-আমার মতো কেউ।
যে ভালোবাসায় থাকবে না কোন হতাশা
থাকবে না অতীতের কোন প্রেম
থাকবে না কারো দুঃখ
থাকবে না ব্যথা-বেদনা
থাকবে না ব্যর্থতার কোন গ্লানি।
থাকবে না সৌন্দর্য্যরে আত্বহংকার
থাকবে না আমার মতো কোন কবি
কিংবা কবির লেখা ডায়রীর পাতায়-
এ শতাব্দীর কষ্টের কবিতা।

————————-


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com