September 25, 2020, 12:32 am

News Headline :
স্বপ্নশয্যা গাজীপুরে চতুর্থ দিনেও আওয়ামী লীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ মিছিল মনপুরাগামী ৩ শতাধিক যাত্রীকে মাঝপথে নামিয়ে দিলেন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ॥ ট্রলারযোগে উত্তাল মেঘনা পাড়ি তজুমদ্দিনে বিয়ে বাড়িতে খাবারে নেশা মিশিয়ে স্বর্ণালংকার চুরি ॥ হাসপাতালে ভর্তি-৬ মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে টঙ্গীতে পদ-পদবী বঞ্চিত নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ দুর্গাপূজায় ৩ দিনের ছুটির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি স্বাস্থ্য খাতের ২০ জনের সম্পদের হিসাব চেয়েছে দুদক গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের ওয়ার্ড কমিটি ঘোষনা পদ বঞ্চিতদের বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ মুজিববর্ষ উপলক্ষে ফের বিশেষ অধিবেশনের প্রস্তুতি গায়েবি মামলায় সাংবাদিক কারাগারে : তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাবি

ঝান্ডা

Spread the love

— দুর্গা বেরা (কলকাতা-ভারত)

মন্দিরের চুড়ায় ধর্মস্থানের সূচক হিসাবে,
হিমালয়-পর্বতের উপর
আরোহীর জয়ের নিশানা হিসাবে,
রাজনৈতিক-দলের প্রতিক হিসাবে,
ভিন্ন ভিন্ন দলের ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য হিসাবে,
মিটিং-মিছিলে- “ঝান্ডা” আলাদা মাত্রা পায়।
এটি, একটি দন্ড বা লাঠির উপর অবস্থান করে।
বারান্দায় বসে পড়াচ্ছিলাম কমলার মেয়েকে।
ঝাড়ু রেখে কমলা বলল —
ওসব ভাষণ দিয়ে কাজ নেই বৌদিমনি,
আমাদের ওসব জানা।
প্রথমটা হলো–
আমার কাছে ঝান্ডা মানে, “ভাত”।
ঝান্ডা নিয়ে লাইনে হাঁটলে সভার শেষে,
ভাত পাওয়া যায়।
খুন করার পর,
ঐ হাতে কালো পতাকা নিয়ে মিছিলে হাঁটলে,
‘ঐ’ ভাত-ই, পাওয়া যায়।
ডেড্-বডি পড়ে থাকলে….!
যদি হয় সে দামি অমানুষ,
অথবা রেপিষ্ট,ঝান্ডা গেঁড়ে।
গেঁড়ে বসলেই…..!
একপাত ভাত মেলে।
ভোটের সময় মারপিট করে,
মাথা ফাটিয়ে দিয়ে – ঝান্ডার জন্য,
দু-মুঠো গরমভাত খেয়েছি বৌদিমনি।
দ্বিতীয়টা হলো,
আমার কাছে ঝান্ডার ডান্ডা মানে —
“সাত খুন মাপ”
আমার বাবাকে যারা খুন করেছিল,
তারা সেদিন থেকে-
এদিন পর্যন্ত, ঝান্ডর-ডান্ডা ধরে আছে হাতে,
হাতকড়া থেকে বাঁচতে।
আমার মা’কে যারা,
গণধর্ষণ করার পর মেরে দিয়েছিল —
শুধু ঝান্ডার ডান্ডা ধরেই,
খোলা-মাঠে ঘুরে বেড়ায় বহাল তবিয়তে।
ওরা, আবারও শিকার খোঁজে।
শিকারের পিঠে হাত বুলায়,
সামনে বিড়ি ফোঁকে।
গায়ে ধাক্কা দিয়ে বলে- টাকা নে,
আমাদের লোভ মেটা,
লোভে পাপ নেই।
শুধু একটামাত্র ঝান্ডার ডান্ডা ধরতে পারলে
“সাত খুন মাপ।”
আমার অশ্রুর ছুটন্ত-ঝর্ণাকলম,
কমলার শুকনো পিঁচুটি লাগা
এবং জ্বলে ওঠা সিক্সসর মারা চোখের দিকে চেয়ে
……, থেমে গেল।
আগের কবিতায় যে লিখেছিলাম,
অনেক গর্ব করে…. !!
“ঝান্ডা হলো– আমার লেখনী,
আমার বক্তব্য,
আমার অভিযোগ,
আমার সততা।
আর ডান্ডা হল — আমার কলম,
আমার হাতিয়ার…… !
এখন রাত্রি দুটো, থমথমে আকাশ।
ভারতবর্ষের খোলা আকাশ,
যেন একটা বিশাল-ঝান্ডা।
মনে হল তার নিচে –
আমাদের ভাত, আমাদের সাত খুন মাপ,
আজো বহমান।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com