ArabicBengaliEnglishHindi

আনোয়ারায় চাতরী চৌমুহনী বাজারের জলাবদ্ধতা যেন দুর্ভোগের কাটা, ভোগান্তিতে হাজার মানুষ


প্রকাশের সময় : জুন ৫, ২০২২, ১২:১৩ অপরাহ্ন / ৪২
আনোয়ারায় চাতরী চৌমুহনী বাজারের জলাবদ্ধতা যেন দুর্ভোগের কাটা, ভোগান্তিতে হাজার মানুষ

চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি ->>
চট্টগ্রামে আনোয়ারার উপজেলার অর্থনীতির চাকা সচ্ছল হলেও প্রাণকেদ্র ঐতিহাসিক চাতুরী চৌমুহনী বাজারের অল্প বৃষ্টি হলেই ময়লার আবর্জনার নোংরা পানিতে জলাবদ্ধতা যেন দুর্ভোগের কাটা।

জানা যায়, উপজেলায় হাজার হাজার মানুষের কর্মস্থান সৃষ্টি হয়েছে। কেইপিজেড, সিইউএফএল, কাফকো, কর্ণফুলী টানেলের শ্রমিক-কর্মচারী, পর্যটন কেন্দ্র পারকী সমুদ্রের সৈকতের যাতায়াতের মূল কেন্দ্র হচ্ছে চাতরী চৌমুহনী বাজার। কিন্তু বৃষ্টি নোংরা পানির ময়লা আবর্জনার জলাবদ্ধতা দুর্ভোগের কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। চরম ভোগান্তিতে চলাচল করতে পথযাত্রারা।

সরেজমিনের পরিদর্শন করা জানা যায়, সিএফএল সড়ক ও পিএবি সড়কের গোল চত্বরের সামনে জলাবদ্ধতা গর্ত সৃষ্টির হয়েছে।যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনার। সড়কের গর্তের জমে থাকা পানিতে আটকে পড়তেছে যানবাহন। অনেক সময় আটকা পড়া চলন্ত গাড়িগুলো টেনে গর্ত থেকে তুলতে হচ্ছে, সতেচন মহল বিশেষজ্ঞ দাবি করতে অধিক লাভের আশা বাজার কমিটির কর্তৃপক্ষ ভাসমান দোকান বাসানো, হোটলের ময়লা আবর্জনার ড্রেনের পড়ে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ড্রেনসমূহ পরিষ্কার করণের কার্যক্রম না করলে চৌমুহনী বাজার জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে আরো বহু গুণ।

আনোয়ারা সরকারি কলেজের ছাত্রীর রিংকি দাশ বলেন,নোংরা পানির ময়লা আবর্জনা জন্য ঠিক হতো গাড়ি পাচ্ছি না। নোংরা পানির থেকে দুর্গন্ধের কারণে স্বাস্থ্যের ঝুঁকিও রয়েছে।

অটোরিকশা চালক সোহেল বলেন,অল্প বৃষ্টি পানিতে জলাবদ্ধতা কারণে গাড়ি চালাতে হিমসিম ক্ষেতে হচ্ছে, ড্রেনসমূহ পরিষ্কার করে দিলে পানি আর জমে থাকবে না।

এবিষয়ে চাতরী চৌমুহনী বাজার কমিটির সভাপতি আনোয়ারকে ফোন করলে সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর তিনি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। পরবর্তীতে আর যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে উপজেলা চাতুরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেল বলেন, বাজারের জলাবদ্ধতার বিষয়টি নিয়ে কয়েকদিন আগেও সমন্বয় সভায় আলোচনা হয়েছে। চলমান ছয় লাইনের কাজটা শেষ হলেই আমরা পানি নিষ্কাসনের কাজ শুরু করবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন,আমরা অনেক সময় প্রশাসনের উদ্যোগে চৌমুহনী বাজারের পানি নিস্কাসনের ড্রেন পরিস্কার করেছি। আসলে যতদিন পর্যন্ত ব্যবসায়ীরা নিজেরাই সচেতন না হবে ততোদিন এটা লেগেই থাকবে। তাই যত্রতত্র ময়লা ফেলা, ড্রেন পরিস্কার রাখা এসব বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সচেতন হতে হবে। তাহলেই জলবদ্ধতা নিরসন করা সম্ভব।