ArabicBengaliEnglishHindi

ঈশ্বরদীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন 


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২২, ১১:১৯ অপরাহ্ন / ৯৮
ঈশ্বরদীতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন 

মামুনুর রহমান ->>

ঈশ্বরদীতে মাহবুব আহমেদ খান স্মৃতি মঞ্চে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস উপলক্ষে ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের উদ্যোগে ভাষা শহীদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়েছে।

সোমবার ২১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় ঈশ্বরদী পুরাতন বাস স্ট্যান্ডে অবস্থিত মাহবুব আহমেদ খান স্মৃতি মঞ্চে ভাষা শহীদের স্মরণে এই মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠিত হয়। ৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সাজিদ মোর্শেদ খান রুশোর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক ও যুবলীগ নেতা তৌহিদুজ্জামান দোলন বিশ্বাস, ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম গোলবার, ভাষা সৈনিক ও বিশিষ্ট সমাজসেবক মাহাবুব মোর্শেদ খান জেম।বক্তারা এসময় ভাষা শহীদের ও অমর একুশ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যে বলেন, বাংলা আমাদের মাতৃভাষা, বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে যারা বুকের তাজা রক্ত দিয়েছে তাদের মনে প্রানে শ্রদ্ধা জানাই।

একুশে ফেব্রুয়ারি শোকাবহ হলেও এর যে গৌরবজ্জ্বল অধ্যায় তা পৃথীবির বুকে অনন্য। তাই ভাষা কে মাতৃভাষার স্বীকৃতি দেওয়ার পেছনে যাদের অবদান তাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করার আহবান জানাচ্ছি।

বাঙালী জাতি ভাষার জন্য ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি বুকের তাজা রক্ত দিয়েছে, সেজন্য আজ আমরা বাংলা ভাষায় কথা বলতে পারছি। ভাষা আন্দোলনই আমাদের স্বাধীনতার স্বপ্নের সৃষ্টি করেছিল। ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষিতেই ১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। আলোচনা শেষে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ভাষা সৈনিকদের সরণে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়।

৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সাজিদ মোর্শেদ খান রুশোর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক ও যুবলীগ নেতা তৌহিদুজ্জামান দোলন বিশ্বাস, ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম গোলবার, ভাষা সৈনিক ও বিশিষ্ট সমাজসেবক মাহাবুব মোর্শেদ খান জেম।

বক্তারা এসময় ভাষা শহীদের ও অমর একুশ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যে বলেন, বাংলা আমাদের মাতৃভাষা, বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে যারা বুকের তাজা রক্ত দিয়েছে তাদের মনে প্রানে শ্রদ্ধা জানাই। একুশে ফেব্রুয়ারি শোকাবহ হলেও এর যে গৌরবজ্জ্বল অধ্যায় তা পৃথীবির বুকে অনন্য। তাই ভাষা কে মাতৃভাষার স্বীকৃতি দেওয়ার পেছনে যাদের অবদান তাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করার আহবান জানাচ্ছি।

বাঙালী জাতি ভাষার জন্য ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি বুকের তাজা রক্ত দিয়েছে, সেজন্য আজ আমরা বাংলা ভাষায় কথা বলতে পারছি। ভাষা আন্দোলনই আমাদের স্বাধীনতার স্বপ্নের সৃষ্টি করেছিল। ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষিতেই ১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। আলোচনা শেষে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ভাষা সৈনিকদের সরণে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়।