ArabicBengaliEnglishHindi

খাগড়াছড়ি ৭টি তক্ষকসহ পাচারকারী আটক


প্রকাশের সময় : জুন ২৫, ২০২২, ৮:৪৩ অপরাহ্ন / ১৩০
খাগড়াছড়ি ৭টি তক্ষকসহ পাচারকারী আটক

ইব্রাহিম শেখ (চট্রগ্রাম ‍ব্যুরো) ->>
খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার মাটিরাঙ্গায় বনবিভাগ ও যৌথবাহিনীর অভিযানে ৭টি তক্ষকসহ এক পাচারকারীকে আটক করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (২৪ জুন) রাত ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বনবিভাগ ও যৌথবাহিনীর অভিযানে পৌরসভার রসুলপুর গ্রামের ইসলাক মীরের বসতবাড়ি থেকে তার ছেলে মোঃ রুবেল( ৪২) এর কাছ থেকে ৭টি তক্ষকসহ তাকে আটক করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, সেনাবাহিনীর মাটিরাঙ্গা জোনের জোন এনসিও সার্জেন্ট মোঃ হানিফুর রহমান ও মাটিরাঙ্গা বনবিভাগের ফরেষ্টার মোঃ রোকনুজ্জামান, ও ফরেষ্টার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম এর নেতৃত্বে বনবিভাগের ফরেষ্ট গার্ড বাগান মালিদের সাথে নিয়ে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার রসুলপুর গ্রামের ইসলাক মীরের বসত বাড়ির থেকে তার ছেলে মোঃ রুবেল এর কাছ থেকে ৭টি তক্ষক উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে মাটিরাঙ্গা বনবিভাগের ফরেষ্টার মোঃ রোকনুজ্জামান বাদী হয়ে খাগড়াছড়ি চীফজু ড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সেজুতি জান্নাত এর আদালতে আসামীর বিরুদ্ধে বন আইনে পিওআর বন মামলানং -১৯/ মাটি আব ২০২১-২০২২ মামলা দায়ের করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন। পরে বিজ্ঞ চীফজুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সেজুতি জান্নাত আসামীকে অবৈধ ভাবে তক্ষক (বন্যপ্রানী) ধরা ও পাচারের অপচেষ্টা জনিত অপরাধে বন্যপ্রানী সংরক্ষন ও নিরাপওা আইন ২০১২এর ৩৪ (খ)ধারা মোতাবেক শাস্তিযোগ্য অপরাধের কারনে জেলহাজতে প্রেরন করেন।

এছাড়া জনসম্মুখে খাগড়াছড়ি চীফ জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সেজুতি জান্নাত ও বনবিভাগের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে উদ্ধারকৃত তক্ষকগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে অবমুক্ত করা হয়েছে।

মাটিরাঙ্গা বনবিভাগের কর্মকর্তা জিএম আলমগীর হোসেন জানান, তক্ষক গিরগিটি প্রজাতির নির্বিষ নিরীহ বন্যপ্রাণী। সাধারণত পুরাতন বাড়ির ইটের দেয়াল, ফাঁক-ফোঁকর ও বয়স্ক গাছে এরা বসবাস করে। বর্তমানে তক্ষকের দাম ও তক্ষক দিয়ে তৈরি ওষুধ নিয়ে ব্যাপক গুজব ছড়ানো হয়েছে। আর গুজবে বিশ্বাস করে এক শ্রেণির লোক রাতারাতি ধনী হবার স্বপ্নে তক্ষক শিকারে নেমেছে। এসব অসাধু ব্যক্তির জন্য দেশের জীববৈচিত্র্য আজ হুমকির মুখে। প্রাণিগুলো রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।