ArabicBengaliEnglishHindi

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৪, ২০২৩, ৮:৩৩ অপরাহ্ন / ২৭৫
চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদক ->>
রাজধানীর মিরপুর পল্লবীতে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে সাবেক ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা হচ্ছেন ঢাকা মহানগর উত্তর পল্লবী থানার ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান পারভেজ। তার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় মামলা হয়েছে (মামলা নং-০২/০১/০৯/২৩ ইং)। শুক্রবার রাত ১২:২০ ঘটিকায় ভুক্তভোগী ওই নারী বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, গত ২৭/০৮/২০২৩ ইং মামলার বাদী সাবিনা চৌধুরীকে চাকরি দেয়ার কথা বলে বিবাদী মুস্তাফিজুর রহমান তার এনজিও অফিসে ডেকে নেয় এবং তাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে পরের দিন তার অফিসে আসতে বলে। মামলার বাদী সাবিনা চৌধুরী পরের দিন গত ২৮/৮/২০২৩ইং প্রয়োজনের সমস্ত কাগজপত্র নিয়ে বিবাদী মুস্তাফিজুর রহমানের এনজিও অফিসে হাজির হয় এবং তার চাকরিও হয়ে যায়, ওই দিনই সন্ধ্যার পর বিবাদী মুস্তাফিজুর রহমান বাদী সাবিনা চৌধুরীকে তার রুমে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমাन পারভেজ রাজধানীর পল্লবী থানাধীন সবুজ বাংলা আবাসিক এলাকার নাসির বকাউলের ছেলে।

এলাকা সূত্রে জানা যায়, ওই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কিশোর গ্যাং, মাদক ব্যবসা ও একাধিক নারী কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত থাকায় একাধিক বার সংবাদের শিরোনামও হয়েছেন তিনি।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে রাজধানীর পল্লবী ও মিরপুর মডেল থানায় একাধিক মামলা, সাধারণ ডায়েরি ও অভিযোগ রয়েছে।

এমনকি তিনি নেশা করে যৌতুকের টাকার জন্য নিজ স্ত্রীকে মারধর করলে, পরবর্তীতে তিনিও রাজধানীর পল্লবী থানায় অভিযোগ করেছিলেন সাবেক তিন নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমাन পারভেজের বিরুদ্ধে।

এতোকিছুর পরেও কোনো এক অদৃশ্য শক্তিরবলে প্রশাসনের নাকরে ডগা দিয়ে ঘুরলেও আইনের আওতায় না আসায় ক্ষোভ জানিয়েছেন ওই এলাকায় বসবাসরত সাধারণ মানুষ।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমাन পারভেজের ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বরে কল করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

ভুক্তভোগী ওই নারীর মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলে রিসিভ করেননি তিনি।

মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই তারেক রাজীব মুঠোফোনে বলেন, আমরা তদন্তাধীন আছি, এখনো আসামি গ্রেফতার হয়নি তবে আসামিকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলমান আছে।

এ বিষয়ে, পল্লবী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাঃ মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, ভিকটিমের মেডিকেল হয়েছে, মামলার দায়িত্বরত এসআই বিস্তারিত জানাতে পারবেন।

এ ধরনের সমাজ কলুষিত কারীকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।