ArabicBengaliEnglishHindi

জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকীতে কাঙালি ভোজের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে দাঁত ভাঙা জবাব দেওয়া হবে


প্রকাশের সময় : মে ২৯, ২০২২, ১০:০৫ অপরাহ্ন / ৫৫
জিয়ার মৃত্যুবার্ষিকীতে কাঙালি ভোজের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে দাঁত ভাঙা জবাব দেওয়া হবে

আলতাফ হোসেন অমি ->>
বঙ্গবন্ধুর খুনি জিয়াউর রহমান এর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে কাঙালী ভোজের নামে কেরানীগঞ্জে বিএনপির কর্মীরা নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে তাদেরকে দাঁত ভাঙা জবাব দেওয়া হবে।
সারাদেশে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের প্রতিবাদে কেরানীগঞ্জে বিক্ষোভ কর্মসূচি মোটরসাইকেল র‍্যালী পালন করেছে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগ।

শনিবার (২৯ মে) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কেরানীগঞ্জ উপজেলার তারানগর ইউনিয়ন এর ঘাটারচর দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
পরে বটতলি বাজার হয়ে কলাতিয়া চৌরাস্তায় জিরো পয়েন্টে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিম বলেন, বিএনপি আবারও নানাভাবে দেশের শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে অশান্ত করার পাঁয়তারা করছে।
শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে কাঙালীভোজের নামে কেরানীগঞ্জে বিএনপির কর্মীরা নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে তাদেরকে দাঁত ভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

তারা যুদ্ধাপরাধী জামায়াতকে নিয়ে ফের ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তবে লাভ নেই তাদের সকল ষড়যন্ত্রের সমুচিত জবাব রাজপথেই মোকাবিলা করবে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার আওয়ামী লীগ।
কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক- হাজী আলতাফ হোসেন বিপ্লব বলেন,আর মাত্র ২৭ দিন, আগামী ২৫ জুন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন ও সম্ভাবনার এক নতুন দ্বার উন্মোচন করবেন।

তিনি স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন।
এর মধ্যে দিয়ে দক্ষিণবঙ্গ তথা বাংলাদেশের মানুষের এক স্বপ্নের মাইলফলক স্পর্শ করবে। আর ঠিক সেই সময় বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশের উন্নয়ন ও সম্ভাবনাকে নস্যাৎ করতে সারাদেশে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে চাচ্ছে।

কারন তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা, উন্নয়ন ও সম্ভাবনাকে মেনে নিতে পারে না।
তারা উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। কিন্তু দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা ও রাজনীতির পরিবেশকে অশান্ত করার চেষ্টা করা হলে রাজপথে তাদের দাঁত ভাঙা জবাব ও প্রতিহত করা হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন, কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সফিউল আজম খান বারকু, যুগ্ম আহ্বায়ক একে-এম রফিকুল ইসলাম হিল্টন, হযরতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আব্দুল মান্নান, সহ সভাপতি হাজী আবুল কাশেম,প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমির হোসেন, সাবেক সভাপতি হাজী মোঃ আলাউদ্দিন। আরো উপস্থিত ছিলেন ডা: ইফতেখার আহমেদ শাওন,কলাতিয়া ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল আজিজ,সাধারণ সম্পাদক ইসতিয়াক আহমেদ রনি,তারানগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আজিজ খান, সাধারণ সম্পাদক হাজী মোঃ মোক্তার হোসেন সহ আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা-কর্মী গন।