ArabicBengaliEnglishHindi

ভাইরাল হওয়া ভিডিও সুপার এডিট দাবি সৈয়দপুর মেয়রের


প্রকাশের সময় : জুলাই ৩০, ২০২৩, ৮:১৫ অপরাহ্ন / ১৫৩
ভাইরাল হওয়া ভিডিও সুপার এডিট দাবি সৈয়দপুর মেয়রের

জেলা প্রতিনিধি,নীলফামারী->>

নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও নিয়ে তোলপাড় চলছে জেলাজুড়ে। অবশেষে ভিডিওটির বিষয়ে মুখ খুলেছেন মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবি।

শনিবার (২৯ জুলাই) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সৈয়দপুর পৌর কমিউনিটি সেন্টারের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ভিডিওটি সুপার এডিট দাবি করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবি বলেন, সুপার এডিট করে বানানো আমার একটি ভিডিও Jawad Nirjhor আইডি ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত শুক্রবার প্রচার করা হয়েছে। যা আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এই কাল্পনিক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখে আমি বিস্মিত, হতভম্ভ এবং বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ি।

আমার স্বামীর মৃত্যুর পর বিগত পৌর নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেয়া নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করে পৌর নাগরিকদের সেবার দায়িত্ব কাধে তুলে নেই আমি। আর এ দায়িত্ব নেবার পর থেকেই আমি প্রতি নিয়ত রাজনীতির কুটচালের শিকার হচ্ছি। তারপরও পৌর পরিষদ ও বিজ্ঞজনদের পরামর্শে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আসছি। এবার শত্রুপক্ষ আমার চরিত্র কলঙ্কিত করতে চাইছে। যান্ত্রিক সভ্যতার নামে আমার মুখচ্ছবি সুপার এডিট করে একাধিক অশ্লীল ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেছে।

তিনি আরও বলেন, সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আমি যাতে জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ভোটের মাঠে নামতে না পারি। সেজন্য আমার শত্রুরা উঠে পড়ে লেগেছে। আমি যাতে আগামী দিনে মেয়র পদে প্রার্থী হতে না পারি সেজন্য সমাজের চোখে আমাকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস চালানো হচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা অপপ্রচার চালাচ্ছে তার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ঘৃণা প্রকাশ করছি। একই সঙ্গে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে আইসিটি এ্যাক্টে মামলা করার প্রস্তুতি গ্রহণ করছি।

এর আগেও এমন ছবি পোস্ট করা হয়েছে কেন ব্যবস্থা নেন নি সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি একটু দেখতে চেয়েছিলাম৷ ভেবেছিলাম তারা নোংরামি বন্ধ করবে। অনেক কিছু ভেবে চুপ ছিলাম। তবে তারা আমার নামে অপপ্রচার চালানোর চেষ্টা বাড়ালে আমি প্রতিবাদ জানাতে বাধ্য হই এবং আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছি।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জুলাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে Jawad Nirjhor নামের একটি পেইজ থেকে সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবির অশ্লীল ছবি পোস্ট করে তিনি ইমো সার্ভিস দেন বলে উল্লখ করা হয়। এরপর গত ২৮ জুলাই ইউটিউবে BDesh Tv নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়। ভিডিওতে মেয়র রাফিকা জাহান বেবির অশ্লীল দৃশ্য ও অঙ্গ ভঙ্গি দেখা যায়। পরে প্রকাশ কৃত ওই ভিডিওর ইউটিউব লিংক পুনরায় Jawad Nirjhor নামের ফেসবুক পেইজে পোস্ট করা হলে তাৎক্ষণিক ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়।