ArabicBengaliEnglishHindi

ভারী বর্ষণে হুমকির মুখে রাঙ্গামাটি


প্রকাশের সময় : জুন ১৯, ২০২২, ৬:১৫ অপরাহ্ন / ১০৪
ভারী বর্ষণে হুমকির মুখে রাঙ্গামাটি

চট্রগ্রাম ‍ব্যুরো অফিস ->>
রাঙ্গামাটিতে গত কয়েকদিনের টানা ভারী বর্ষণের কারণে রাঙ্গামাটি শহরের বানিজ্যিক এলাকার রিজার্ভ বাজারের প্রবেশের মূল সড়কে আবারো ভাঙ্গণ দেখা দিয়েছে। এতে যে কোন সময় বড় ধরনের ভাঙ্গণ দেখা দিলে বন্ধ হয়ে যেতে পারে যোগাযোগ ব্যবস্থা। জানা যায়, গতবছর বর্ষা মৌসুমে রিজার্ভ বাজার আব্দুল আলী স্কুল এন্ড কলেজের সামনে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের নবনির্মিত ভবনের পাশে রিজার্ভ বাজার মূল বানিজ্যিক এলাকার প্রবেশ মুখের সড়কে পূর্বপাশে মাটি ভেঙ্গে রোড়ের কার্পেন্টিংয়ের নিছে মাটি সরে যায়। একবছর আগে এই রোডের বর্ষা মৌসুমে মাটি ধসে পড়ে কার্পেটিংয়ের নিচে মাটি সরে গেলেও গত এক বছেরেও সংস্কার করা হয়নি এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কের।

রাঙ্গামাটি শহরের বাণিজ্যিক এলাকা রিজার্ভ বাজার প্রবেশ মুখের ভাঙ্গন কবলিত মূল সড়ক দিয়ে জেলা শহরের সাথে ছয় উপজেলা যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। এই রিজার্ভ বাজার থেকে প্রতিদিন হাজারো মানুষ চলাচল করে এবং রিজার্ভ বাজারের লঞ্চ ঘাট থেকে ৬ উপজেলায় যাতাযাত করে থাকে। এবার টানা বৃষ্টির সাথে সাথে সড়কের কার্পেটিংয়ের নিচে থেকে আবার ও মাটি সড়ে আরো ভয়াবহ রূপধারণ করছে।

এই মাটি ধ্বসের কারণে যেকোনো সময় যোগাযোগ বন্ধ হতে পারে এই গুরুত্বপূর্ণ বানিজ্যিক এলাকাসহ জেলার ছয় উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা।রাঙ্গামাটির ছয় উপজেলা থেকে প্রবেশ করতেও একই পথ ব্যবহার করে থাকে লঞ্চ যাত্রীসহ সাধারণ মানুষ। তাই রিজার্ভ বাজার প্রবেশের মূল সড়কটি যদি ভাঙ্গনের কবলে পড়ে তা হলে উপজেলাগুলোর সাথে শহরের মালামাল আনা নেয়াসহ ব্যবসায়িক যোগাযোগও বন্ধ হয়ে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে। চলমান বর্ষাকালে টানা কয়েকদিনের লাগাতার ভারী বৃষ্টির কারণে আবার ভাঙ্গণের ঝুঁকিতে রয়েছে এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি।

রিজার্ভ বাজার ব্যবসায়িরা বলছেন, রাস্তা ভেঙ্গে যদি যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে সাধারণ ব্যবসায়িদের বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। শুধু এখানকার স্থানীয় ব্যবসায়িরা নয়, জেলার ছয় উপজেলার ব্যবসায়িসহ সাধারণ মানুষকে পড়তে হবে বিপদের মুখে। জেলার ছয় উপজেলার মানুষের শহরের একমাত্র প্রবেশ দ্বার রিজার্ভ লঞ্চঘাট হয়ে। তাই রাস্তাটি অতিদ্রুত সংস্কারের দাবি জানান ব্যবসায়িসহ এখানকার সাধারণ মানুষ।

যদি এই সড়কটি বড় ধরনের ভাঙ্গণ দেখা দেয় তা হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের টনক নড়বে বলে সড়কে চলাচলরত যাত্রী সাধারণরা মন্তব্য করেন।এই বিষয়ে গত বেশ কয়েক দিন আগে রাঙামাটি পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এই সড়ক ভাঙ্গণের বিষয়ে এখনো তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। তারা এই জায়গায় ভাঙ্গনের খবর এখনো পাননি। পৌরসভার প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে। তারা খোঁজ খবর নিয়ে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। কিন্তু বার বার বিভিন্ন পত্রিকা ও নিউজ পোর্টালে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরও এতো দিনে এই সড়ক ভাঙ্গনে এখনো সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেইনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

টানা বৃষ্টির কারণে শনিবার (১৮ জুন) সকালে আবারও আস্তে আস্তে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে এই সড়কটি। শনিবার সকাল ভাঙ্গনকৃত সড়কটি পরিদর্শনে যান রাঙ্গামাটি রিজার্ভ বাজার ব্যবসায়িক কল্যান সমিতির সভাপতি হাজি আনোয়ার মিয়া বানু। এসময় রিজার্ভ বাজার মসজিদ কমিটির সাবেক সাদারণ সম্পাদক হাজি মো আব্দুর জব্বার, সদস্য ইছাক মাতাব্বরসহ অন্যান্যরা।

এসময় তারা পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বা পানি উন্নয়ন বোর্ড অথবা যেকোনো সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন সংস্থার মাধ্যমে সংস্কার করে রিজার্ভ বাজারকে রক্ষার আহব্বান জানান তারা।

অতিদ্রুত এই রাস্তার সংস্কারের প্রদক্ষেপ না নিলে শুরু হওয়া এই টানা বর্ষণে যে কোনো সময় সড়ক ভেঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ হতে পারে এই গুরুত্বপূর্ণ বানিজ্যিক এলাকাসহ জেলা শহরের সাথে ছয় উপজেলা। তাই অতিদ্রুত সড়ক ভাঙ্গণ রোধে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো এগিয়ে আসার আহ্বান জানান এখানকার স্থানীয়সহ ব্যবসায়ি নেতৃবৃন্দরা।