ArabicBengaliEnglishHindi

মুকিতের ষড়যন্ত্রে মক্কায় বিএনপির নেতৃবৃন্দ জেলখানায়


প্রকাশের সময় : মে ১৬, ২০২৩, ৮:৪৮ অপরাহ্ন / ১২১৮
মুকিতের ষড়যন্ত্রে মক্কায় বিএনপির নেতৃবৃন্দ জেলখানায়

সৌদি আরব প্রতিবেদক ->>
সৌদি আরবের মক্কা বিএনপির কমিটির আওতাধীন সড়াইয়া বিএনপির আয়োজনে গত ১২ই ফেব্রুয়ারী ২০২৩ইং স্থানীয় এক কমিউনিটি সেন্টারে তারেক রহমান ও জোবাইদা রহমানের সম্পতি বাজেয়াপ্তের প্রতিবাদে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় কক্সবাজার জেলার ঈদগা থানার বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম চেয়ারম্যান পবিত্র ওমরা পালনে আসায় তাকেও প্রধান অতিথি ও সংবর্ধনা আসার কথা ছিল।

উক্ত অনুষ্ঠানকে ঘিরে ধরপাকড়ের সূত্রপাত হয়,এদিকে আহম্মদ আলী মুকিব আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও যুবদলের সৌদি আরবের কেন্দ্রীয় কমিটি সভাপতি আব্দুল মান্নানসহ তাদের নেতৃত্বে মক্কা বিএনপি কমিটি জন শূন্য হওয়াতে আক্রস আক্রমনাক্ত প্রতিহিংসা মূলক নির্শেদ দিয়ে মক্কা আহবায়ক কমিটির জহির আহম্মদ রহিঙ্গা ও শাহাবুদ্দিন, কামাল হোসেন (সিলেট), বেলাল, ফকির আহম্মদ,আব্দুল্লাহ এরাই সৌদি আরবের কালো পুলিশকে খবর দিয়ে অনুষ্ঠানের শেষ মূহুর্তে ৪০ থেকে ৫০টি গাড়ী নিয়ে এসে অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রায় ৮শত লোকের মধ্যে প্রধান অতিথি কক্সবাজারের জেলার ঈদগা থানার বিএনপি বর্তমান সভাপতি আবুল কালাম চেয়ারম্যানসহ মক্কা বিএনপি সহ সভাপতি সৈয়োদুল হক, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ আবুল হোসেন ও মক্কা যুবদলেন সভাপতি মহাম্মদ কামালসহ ৮০/৯০ জন লোকের আকামা নিয়ে মামলা করে দেয় এবং সরেজমিনে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের প্রতিনিধিরা পালিয়ে অন্যত্র বেচে যায়।

ঘটনার সূত্রে জানাযায়, সৌদি আরবের বিএনপির গ্রুপিং ইন্দন দাতা আহম্মদ আলী মুকিত দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে অসাংগঠনিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়ে পড়ে, যারা তৃণমূল থেকে উঠে এসেছে তাদের বাদ দিয়ে কিছু অংকের বিনিময়ে রহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কাছে সুবিধা নেওয়ার জন্য ও আগামীতে সৌদি এম্যাবাসিতে পাসপোর্ট সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার জন্য আসল ও ত্যাগী কর্মিদের বঞ্চিত করে এশিয়া বিখ্যাত বৃহত্তর একটি রাজনৈতিক দলকে ছুরি মেরে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর হাতে বিএনপি কমিটি হস্তান্তর করে। কিছু কক্সবাজার মিশ্রিত জনগোষ্ঠী,বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার একই কমিটির নেতৃবৃন্দ রোহিঙ্গ জনগোষ্ঠীর কমিটিকে প্রতিবাদ করে অবাঞ্চিত ঘোষনা করে।

 

 

সেই দিন তাৎক্ষনিক ভাবে তারেক রহমান ও জোবায়দা রহমানের সম্পত্তির বাজেয়াপ্তের বিরুদ্দে প্রতিবাদ সভার উদ্যোগে রোহিঙ্গা গংদেরকে বাদ দিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজনের ঘোষনা করা হয়। সেই খবর রোহিঙ্গা গং জহির, শাহাবুদ্দিন পাওয়ার পর সাথে সাথে টেলিফোনে হুমকি দেয় তোমরা কিভাবে অনুষ্ঠান করো আমরা দেখে নিবো। হুমকি দেয়ার পর তাৎক্ষনিক আহম্মদ আলী মুকিত গং পাল্টা কমিটি ঘোষনা দেয়। উক্ত কমিটি ভূয়া কমিটি নিম্নে দেয়া হলো। যে সকল নেতা কর্মিকে সৌদি আরবের কারাগারে পাঠানো হয়। তারা হলেন সৌদি আরবে বাংলাদেশ থেকে ওমরা হজ¦ পালন করাতে আসা কক্্রবাজার জেলার ঈদগা থানার বিএনপি সভাপতি আবুল কালাম চেয়ারম্যান, মক্কা বিএনপি যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দুল হক, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ আবুল হোসেন,মক্কা যুব দলের সভাপতি কামাল উদ্দিন, মক্কা বিএনপির সদস্য আব্দুল হামিদ, মক্কা সড়াইয়ার কমিনিউটির সেন্টারের কেয়ার টেকার দুইজন ইয়ামেনী নাগরিক ও একজন বাবুর্চি এরা দীর্ঘ সাড়ে ৪মাস যাবৎ জেল খানায় রয়েছে ।

তারা সৌদি আরবের কোন জেলা খানায় রয়েছে তার সঠিক কোন খবর এখনও পাওয়া যায়নি। ঈদগা থানা বিএনপি সভাপতি আবুল কালাম চেয়ারম্যানের পরিবার ,ছোট বাচ্চা ও চেয়ারম্যান সাহেবের বৃদ্ধ আম্মু এ্যাম্বাসির সহযোগিতার বিষয়াদি জানানোর পর নিন্দা প্রকাশ করে এবং বাংলাদেশ সৌদি রাষ্ট্র দূত ও জেদ্দা কনসাল জেনারেল মহোদয়ের সহযোগীতায় তাদের কে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। চেয়ারম্যানের স্ত্রী, বাচ্চা, মা বাংলাদেশে ফেরত যাওয়ার পূর্বে জেদ্দা এ্যাম্বাসিতে রোদ্্রতর বৈঠক করা হয়। লিখিত দরখাস্ত দিয়ে স্বামীর মুক্তির জন্য সহযোগীতা কামনা করে। সেই সাথে সকল অফিসারদেরকে সহযোগী করার জন্য ধন্যবাদ জানান।