ArabicBengaliEnglishHindi

মোহনপুরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে মেরে হাত ভেঙে দিল স্বামী ও শশুর


প্রকাশের সময় : মার্চ ৫, ২০২২, ৮:১৮ অপরাহ্ন / ২৮৪
মোহনপুরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে মেরে হাত ভেঙে দিল স্বামী ও শশুর

সৈয়দ আ:হালিম রাজশাহী ->>

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার শনখেজুর এলাকায় যৌতুকের দাবিতে মরিয়ম (২৫) নামের এক গৃহবধূকে শয়ন ঘরে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শশুরের বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত ওই গৃহবধূ বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এঘটনায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ মোহনপুর থানাকে মৌখিক অভিযোগ দিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
ভুক্তভোগী গৃহবধূ ও তার পরিবার জানায়, ২০০৯ সালে উপজেলার মৌগাছি ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মুনসুরের ছেলের মিজান (৩২) এর সাথে মরিয়মের বিয়ে হয়। তাদের পরিবারে আবদুল্লাহ নামে একটি ১০ বছরের ছেলে সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই তার স্বামী ও শ্বশুর যৌতুক হিসেবে ১লাখ টাকার দেয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। তাদের চাহিদামত টাকা দিতে না পারায় বিভিন্ন অজুহাতে তার উপর চলতো নির্যাতন। গত ৭ মাস আগে তার শাশুড়ী মারা গেলে শশুরের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে তার ছেলের বউয়ের উপর। বিভিন্ন সময় ছেলের বউকে অনৈতিক প্রস্তাব দেয় শশুর। বিষয়টি ওই গৃহবধূ তার স্বামীকে জানানোর শুরু হয় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। যৌতুকের টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকে স্বামী ও শশুর। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ৩ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টার দিকে ওই গৃহবধূকে শশুর ও স্বামী মিলে শয়ন ঘরে নিয়ে হাত-পা বেঁধে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে তাঁর শরীরের বিভিন্ন অংশ জখম করে। এরপর ঘরে তালা মেরে তারা চলে যায়। এভাবে ১ দিন তালাবদ্ধ রাখার পর ৪ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে সুযোগ পেয়ে গৃহবধুর ছেলে তালা খুলে দিলে কোন রকমে ওই গৃহবধূ তার মায়ের বাড়ি ধুরইলে পৌছায়। এরপর তার মা ও স্থানীয়দের সহায়তায় সেদিন রাত্রে মোহনপুর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তার বাম হাতে অবস্থা খারাপ দেখে এক্সরে পরীক্ষার পরামর্শ দিলে এক্সরে পরীক্ষায় বাম হাত ভেঙে গেছে। ওই গৃহবধূ হাটতে পারছেন না। হাত ভেঙে যাওয়ায় মোহনপুর হাসপাতাল থেকে তাকে রামেক হাসপাতালে ওসিসি-তে স্থানান্তর করা হয়েছে। ওসিসি হতে হাতের চিকিৎসা করার জন্য অর্থপেডিক্স ওয়ার্ডে রেফার্ড করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। সাংবাদিকদের কাছে এমনই ঘটনার বর্ননা দিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ।
এবিষয়ে মোহনপুর থানা কর্মকর্তা ওসি মোহাঃ তৌহিদুল ইসলাম জানান, মোবাইলে খবর পেয়ে মোহনপুর হাসপাতালে জরুরি অফিসারকে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটির হাত ভেঙে যাওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে গৃহবধূর স্বামী ও শশুরকে পাওয়া যায়নি। পুলিশের পক্ষ থেকে অসহায় গৃহবধূকে সব ধরণের সহায়তা করা হবে। লিখিত অভিযোগ পেলে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।