ArabicBengaliEnglishHindi

রাজশাহীতে আ.লীগ নেতার প্রভাব খাটিয়ে বাড়ি দখল


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০২২, ১২:০২ পূর্বাহ্ন / ১৫৫
রাজশাহীতে আ.লীগ নেতার প্রভাব খাটিয়ে বাড়ি দখল

সৈয়দ আ:হালিম রাজশাহী ->>
রাজশাহী নগরীতে আওয়ামী লীগ নেতার প্রভাব খাটিয়ে একটি বাড়ি দখলের অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি নগরের বোয়ালিয়া থানার দড়িখরবোনা এলাকায় কহিনুর স্টুডিও’র পিছনে এক তলার বাড়িটি দখল করে নেয় মো. ওয়াহিদ ও তার শশুর নজরুল ইসলাম কাটু। এ নিয়ে বাড়ির মালিক সুরাফ খান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
বিষয়টি সুরাহার জন্য পুলিশ দুই পক্ষকে একাধিকবার থানায় ডাকলেও ওয়াহিদ ও কাটু উপস্থিত হয়নি। পুলিশের নির্দেশ অমান্য করে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার প্রভাব খাটিয়ে বাড়িটি দখল করে রেখেছেন তারা।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বসত বাড়ি না থাকায় মানবিক কারণে নিজের বাড়িতে ফুপু পুতলি বেগমকে থাকতে দেন সুরাফ খান। গত বছর ফুপু মারা যান। এর পর ফুপাতো ভাই ভাঙড়ি ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম কাটু তার জামাতা ওয়াহিদকে ওই বাড়িতে তুলে দিয়ে দখল করে নেয়। এর পর গত ১ ফেব্রুয়ারি রাতের অন্ধকারে তারা বাড়িতে ওয়াসার পানির লাইন লাগানোসহ সংস্কারের কাজ শুরু করলে বাধা দেয়া হয়। এ সময় তারা সুরাফ খানকে অকথ্য ভাষায় গালাগালিজ করে এবং ভয়ভতি দেখিয়ে হুমকি দেয়।
এছাড়াও নজরুল ইসলাম কাটু আওয়ামী লীগ নেতার প্রভাব খাটিয়ে সুরাফ খানের লিজ নেয়া রেলওয়ের জমিতে জোরপূর্বক ৮/১০টি টিনের ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দিয়েছে।
জানা গেছে, ভাঙড়ি ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম কাটু এক সময় রাজশাহী নগরের চোরাই সিন্ডিকেটের গডফাদার ছিলেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা ও সাধারণ ডায়রিও রয়েছে। চোরাই মালামালের একটি মামলায় সাজাও খেটেছেন তিনি।
সুরাফ খান বলেন, ফুপুর নিজের বসত বাড়ি ছিল না। ছেলেদের বাড়িতেও ফুপু জায়গা পায়নি। এ অবস্থায় মানবিক কারণে ফুপুকে আমার বাড়িতে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়ে ছিলাম। কিন্তু ফুপু মারা যাওয়ার পর ফুপুর এক ছেলে তার জামাইকে দিয়ে বাড়িটি দখল করে রেখেছে।
বোয়ালিয়া থানার ওসি মাজাহারুল ইসলাম বলেন, বাড়িটির মালিক সুরাফ খান। ওয়াহিদ সেই বাড়িটি দখল করে রেখেছে। অভিযোগ পাওয়ার পর দুই পক্ষকে থানায় ডাকা হয়। প্রথমে ওয়াহিদ ও তার শশুর চার দিনের সময় নেয়। এর পর বাড়ি না ছাড়লে আবারও ডাকা হয়। কিন্তু সে উপস্থিত হয়নি। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।
এ ব্যাপারে জানতে মুঠোফোনে নজরুল ইসলাম কাটুর সঙ্গে যোগাযোগ হলে তিনি বাড়ি দখলের বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি। সন্ধ্যার পর দেখা করে কথা বলতে চেয়ে ফোন কেটে দেন।