ArabicBengaliEnglishHindi

রাজশাহীতে বেড়েছে পানের দাম, কৃষকের মুখে হাসি


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২২, ১১:১২ অপরাহ্ন / ১২৩
রাজশাহীতে বেড়েছে পানের দাম, কৃষকের মুখে হাসি

সৈয়দ আ:হালিম ->>

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে কয়েকগুণ লোকসানে রাজশাহী চাষিদের পান বিক্রি করতে হয়েছে। তবে গত কয়েক সপ্তাহ থেকে পানের দাম বাড়তে শুরু করেছে। এতে স্বস্তিতে রাজশাহীর পান চাষিরা।

৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকা দরের বড় পানের বিড়া এখন ৭০ থেকে ১০০ টাকা। আর ছোট ৫ টাকা থেকে ১০ টাকা দরের পানের বিড়া এখন বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকা।

রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি ২০২২) রাজশাহীর মোহনপুর একদিল তলা পানের হাট ঘুরে খুচরা এবং পাইকারি ব্রিক্রেতাদের সাথে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
বিক্রেতারা বলছেন, করোনাভাইরাসের কারণে কয়েকগুণ কম দামে পান বিক্রি করতে হয়েছে। দফায় দফায় বন্যায় পান বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে বর্তমান বাজারে পানের দাম বাড়তে থাকায় ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন চাষিরা।

জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্যমতে, চলতি বছর রাজশাহীতে চার হাজার ৪২৩ হেক্টর জমিতে পান উৎপাদন হয়েছে ৭১ হাজার ৯৮৭ টন। রাজশাহীতে বছরে এক হাজার ১০৩ কোটি ৬১ লাখ টাকার পান বেচাকেনা হয়।

সংস্থাটি আরও বলছে, রাজশাহীর ৭৪ হাজার ২২৮ জন কৃষক পান চাষের সঙ্গে জড়িত আছেন। জেলার মোহনপুর, দুর্গাপুর ও বাগমারা উপজেলায় পান চাষ হলেও মোহনপুর উপজেলাতে উৎপাদন হয় সবচেয়ে বেশি। তবে কয়েক দফা বন্যায় পান বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

মোহনপুর উপজেলার বিদিরপুর গ্রামে দুখু মিয়া পানচাষি আলহাজ আলী বলেন, ২০ কাঠা জমিতে পানের বরজ করেছি। গত এক মাস আগে যে পানের দাম ছিলো ৫ টাকা বিড়া সেই পানের দাম এখন ৩০ টাকা। এভাবে পানের দাম বাড়তে থাকলে আমরা ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবো।

উপজেলার মোহনপুর সদরের পান চাষি লালন আলী জানান, ১০ কাঠা জমিতে পানের বরজ করেছি। পানের উৎপাদনও ভালো হয়েছে। আগে যেই পান বিক্রি হতো ৫০ থেকে ৬০ টাকা বিড়া। সেই পান এখন ৮০ থেকে ৯০ টাকা। বর্তমানে ভালো দাম পেয়ে তিনি খুশি।