ArabicBengaliEnglishHindi

সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১০লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কারনে ২ জনকে গ্রেফতার


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২১, ২০২২, ১১:২০ অপরাহ্ন / ১৫৪
সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১০লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কারনে ২ জনকে গ্রেফতার

নওগাঁ প্রতিনিধি ->>
নওগাঁয় সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তার ওই দুই ব্যক্তি সম্পর্কে জামাই-শ্বশুর। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার জাহানপুর বাজার এলাকা থেকে তাঁদেরকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-৫-এর জয়পুরহাট ক্যাম্পের সদস্যরা।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় র‌্যাব-৫-এর জয়পুরহাট ক্যাম্প থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা হলেন, গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার উদয়সাগর গ্রামের শাহ আলম (৪৫) ও তাঁর মেয়ে জামাই দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার জাংগাই বাজার এলাকার শাহাজুল (৩০)।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গ্রেপ্তার শাহ আলমের নেতৃত্বে দীর্ঘ দিন ধরে একটি চক্র বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার কথা বলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণামূলক কাজ করে যাচ্ছে। শাহাজুলও সেই চক্রের সদস্য। তারা কখনও নিয়োগের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে বা ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছিলেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে নিয়োগ চলাকালে একজন প্রার্থীর সঙ্গে শাহ আলম ও তার জামাই শাহাজুলের যোগাযোগ হয়। তারা তাকে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন এবং ওই চাকরি প্রার্থীকে ভুয়া নিয়োগপত্র দেন। র‌্যাবের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে এ ধরণের একটি সংবাদ পাওয়ার পর র‌্যাব শাহ আলম ও শাহাজুলের ওপর নজরদারি শুরু করে।

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে খবর পেয়ে জয়র্পুহাট র‌্যাব ক্যাম্পের একটি দল নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার জাহানপুর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে শাহ আলম ও শাহাজুলকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি ভুয়া নিয়োগপত্র, একটি ভুয়া সিল, একটি মোবাইল, দুটি সিম কার্ড, একটি মেমোরি কার্ড ও দুটি অনিবন্ধিত মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোস্তফা জামান জানান, আটক ব্যক্তিদের ধামইরহাট থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাঁদের বিরুদ্ধে একটি প্রতারণা মামলা হয়েছে। ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক কাজী জানান, গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। আদালতের নির্দেশে তাঁদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।