ArabicBengaliEnglishHindi

হারিজা-শিব্বীর দম্পওির খুটির জোর কোথায়?


প্রকাশের সময় : জুন ২৪, ২০২২, ১২:০১ অপরাহ্ন / ১৩০
হারিজা-শিব্বীর দম্পওির খুটির জোর কোথায়?

বিশেষ প্রতিনিধি ->>
হারিজা-শিব্বীর দম্পওির ঢাকার এ্যালিফেন্ট রোডে মোবাইল পাটের একটি শো-রুম ছিল। সেখানে প্রায় ১৭/১৮ জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ি মিলে একটা সমিতি করেন ২৮ লক্ষ টাকা হারিজা-শিব্বীর দম্পওির কাছে জমা রাখে উওরায় জমি কেনার জন্য।

সেই টাকা ও আত্নসাৎ করে হারিজা-শিব্বীর দম্পওি। এই ঘটনায় নিউ মার্কেট থানায় এন আই এ্যাঃ-১৩৮ ধারায় একটি সিআর মামলা দায়ের করে ঐ মোবাইল পাটের ব্যবসায়িরা।

মজিবুর রহমান নামের এক জনকে নেদারল্যান্ডে পাঠানোর কথা বলে নগত ও ইসলামী ব্যাংক একাউন্টে চেকের মাধ্যমে ৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। প্রতারনা বুঝতে পেরে টাকা ফেরৎ চাইলে হারিজা উল্টো মামালা দেয়ার হুমকি দেয়।

এতে ভয় পেয়ে মজিবুর রহমান রমনা থানায় প্রথমে জিডি ও পরে ঐ দম্পওির বিরুদ্ধেমামলা দায়ের করেন যাহার নাম্বার ১৩, তারিখ ২১/০৮/২০২১ইং, ধারা-৪০৬/৪০/৫০৬/৩৪ পেনাল কোড।

উল্লেখ্য, গত০৩ ডিসেম্বর ২১ তারিখে হারিজা আক্তার ঐ মামলায় ২৭ দিন জেলেও ছিল। জেল থেকে বের হয়ে সে আরও হিংস্র হয়ে ওঠে। হারিজা আক্তার নিজেকে একজন ব্যবসায়ি ও বিভিন্ন

পরিচয়ে মানুষের সাথে প্রনয়ের সম্পর্ক গড়ে তুলে তাদেরকে ব্ল্যাকমেইল করাই তার এক প্রকারের নেশা।এই নেশাগ্রস্থ মানুষের হাত থেকেপরিত্রানের উপায় খুজেও দিশেহারা ভুক্তভোগীরা।

তাদের অনেকর পশ্ন,হারিজা-শিব্বীর দম্পওির প্রতারণার শেকড় কোথায়,? উওরের আশায় দিনগোনা মানুষগুলো বারাবার আইনের দরজায় কড়া নেড়েও ফল পাননি বলেও আপেক্ষ প্রকাশ করেন।