ArabicBengaliEnglishHindi

২৫৯ দিন পর মাঠে এরিকসেন


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২২, ৭:৪৬ অপরাহ্ন / ১০২
২৫৯ দিন পর মাঠে এরিকসেন

স্পোর্টস ডেস্ক ->>
২০২০ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে ফিনল্যান্ড ও ডেনমার্ক ম্যাচ চলার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠেই জ্ঞান হারান ডেনিশ তারকা ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন। এরপর চলে গিয়েছিলেন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

তার বেঁচে ফেরাটাই ছিল বড় বিস্ময়। বুকে কৃত্রিম যন্ত্র লাগিয়ে ফেরেন সুস্থ হয়ে। তবে লড়াই করে ফিরলেও ক্যারিয়ার থেমে যাওয়ার শঙ্কা ভর করেছিল নানা জটিলতায়। অবশেষে ২৫৯ দিন পর মাঠে ফিরলেন ‘মৃত্যুঞ্জয়ী’ এরিসকেন।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শনিবার ব্রেন্টফোর্ড মুখোমুখি হয় নিউক্যাসেল ইউনাইটেডের। সবার চোখ ছিল ব্রেন্টফোর্ডের এরিকসেনের দিকে। ৫২ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে সাবেক টটেনহ্যাম তারকাকে মাঠে নামান কোচ টমাস ফ্রাঙ্ক।

মাঠে নামার পর চারবার কর্নার নিতে গেছেন এরিকসেন। প্রতিবারই ব্রেন্টফোর্ড কমিউনিটি স্টেডিয়ামে হাজির দর্শকরা দাঁড়িয়ে সম্মান জানিয়েছেন তাকে।

যদিও ফেরার দিনটা রাঙাতে পারেননি এরিকসেন। তিনি বদলি হিসেবে নামার আগেই ২-০ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে দল, শেষ পর্যন্ত হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় তাদের।

২০২০ ইউরোতে ডেনমার্ক ও ফিনল্যান্ডের ম্যাচ চলাকালীন গোটা বিশ্বের বুকে কাঁপুনি ধরিয়ে দিয়েছিলেন এরিকসেন। হঠাৎ মাঠেই জ্ঞান হারিয়ে নিথর হয়ে পড়ে ছিলেন তিনি।
সঙ্গে সঙ্গে তার চিকিৎসায় মাঠে নেমে পড়ে মেডিক্যাল দল। কৃত্রিম উপায়ে শ্বাস প্রশ্বাস ফেরানোর চেষ্টা করা হয়। দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ায় সাক্ষাৎ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসেন এরিকসেন।

হাসপাতালে থাকাকালীন এরিকসেনের হৃদযন্ত্রের নানারকম পরীক্ষা করা হয়েছিল। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে, তার হৃদস্পন্দনের গতি ঠিক রাখার জন্য শরীরে একটি বিশেষ যন্ত্র বসানো হবে। এরিকসেন নিজে তার শরীরে ডিফাইব্রিলেটর বসানোর প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছিলেন।

তবে কৃত্রিম যন্ত্র ব্যবহারের ফলে গত মৌসুমে ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলান এরিকসেনকে চুক্তি থেকে বাদ দেয়। আইসিডি লাগানো কোনো খেলোয়াড় ইতালিয়ান লিগে খেলার নিয়ম না থাকায় একরকম বাধ্য হয়েই তাকে ছেড়ে দেয় ক্লাবটি। পরে ইংলিশ ক্লাব ব্রেন্টফোর্ড কিনে নেয় ৩০ বছর বয়সী এই ফুটবলারকে।