ArabicBengaliEnglishHindi

পল্লবীতে সৎমাকে হত্যা মামলার আসামি সুজনকে সাভার থেকে গ্রেফতার


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ২৮, ২০২২, ৮:৩০ অপরাহ্ন / ৬৫
পল্লবীতে সৎমাকে হত্যা মামলার আসামি সুজনকে সাভার থেকে গ্রেফতার

এস এম জীবন >>
গতকাল শনিবার বিকাল ৫টায় পল্লবীর ১২ নম্বর বি ব্লকের ৭ নম্বর রোডের ১২৫ নম্বর বাড়িতে নিচ তলায় সৎ মায়ের কাছে টাকা চাওয়ার পর টাকা না দেওয়ায় সৎ ছেলে সুজন ক্ষিপ্ত হয়ে মাংশ কাটার কাঠ দিয়ে মাথায় আঘাত করলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরনের কারনে ঘটনা স্হলে মৃত্যু হয়।

 

মসজিদ নির্মাণ কাজে আর্থিক সাহায্যের আবেদন

 

পরে মামলার বাদী মৃতের (নিজ) ছেলে খন্দকার ইমরুল(৩২) থানায় হাজির হয়ে ১। সুজন বিশ্বাস (২৩) পিতা সাইদুল,মাতা হালিমা সাং মাঝবাড়ী, (৫নং ওয়ার্ড) কালুখালী, জেলা রাজবাড়ী। বর্তমান ঠিকানা ঘটনাস্থল পল্লবী জেলা ঢাকা এর বিরুদ্ধে এজহার দায়ের করেন যার পল্লবী থানার মামলা নং ৮৭, তারিখ ২৮/৮/২২ খ্রিঃ মামলার ধারা ৩০২, পেনাল কোড রুজু হয়।

উল্লেখ নিহত শাহানার স্বামীর নাম সাইদুল ইসলাম। ওই বাড়িতে শাহানা তার স্বামীর সঙ্গে বসবাস করতেন। শাহানার এটি দ্বিতীয় বিয়ে। আর সৎ ছেলে সুজন অন্য জায়গায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন।জানা জায় সুজন ক্যানসার আক্রান্ত রোগী। .

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকালে শাহানা তার সৎ ছেলে সুজনের সঙ্গে বাড়ির গ্যারেজ বসে কথা বলছিলেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সুজন তার সৎ মা শাহানাকে গ্যারেজে রাখা মাংস কাটার খাটিয়া দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই শাহানার মাথার মগজ বেরিয়ে আসে। এরপর ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক সুজন পালিয়ে যায়। .

তবে ঘটনা পরপরে আসামী গ্রেফতারের জন্য মিরপুর বিভাগের উপ – পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ জসিম উদ্দিন মোল্লার প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে পল্লবী থানার একাধিক টিম সাঁড়াশী অভিযান পরিচালনা করে।

 

 

আসামি বার বার অবস্থান পরিবর্তন করায় আসামিকে গ্রেফতারের লক্ষে মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

পরবর্তীতে পল্লবী জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক জনাব উদয় কুমার মন্ডল সহ এস আই(নিঃ) তাপস কুমার কুন্ডু সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স সহ তথ্য-প্রযুক্তির সাহায্যে ঢাকার সাভার থানার রেডিও কলোনী এলাকা থেকে আসামী সুজন বিশ্বাস (৩২) কে গ্রেফতার করেন।

আজ ২৮/৮/২২ বেলা ২. ঘটিকার সময় মিরপুর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব জসিম উদ্দিন মোল্লা তার কার্যালয়ে প্রেস বিফিং এর মাধ্যমে জানান আসামী সুজন তার সৎ মায়ের কাছে টাকা চাওয়ার পর টাকা না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে কাঠ দিয়ে আঘাত করলে ঘটনা স্হলে মৃত্যু হয়। গ্রেফতারের পর আসামী সুজন বিশ্বাস (৩২) অকপটে স্বীকার করছে।

পল্লবী থানার ওসি জনাব পারভেজ ইসলাম পিপিএম (বার) জানান, সুজনকে কিছুদিন আগে ডাকাতির প্রস্তুতির মামলায় গ্রেফতার করা হয়,৭ দিন আগে জামিনে বেরিয়েছেন।